Oops! It appears that you have disabled your Javascript. In order for you to see this page as it is meant to appear, we ask that you please re-enable your Javascript!

রাষ্ট্রপতি শাসিত সরকার

যে শাসন ব্যবস্থায় শাসন বিভাগ তার কাজের জন্য আইন বিভাগের নিকট দায়ী থাকে না, তাকে রাষ্ট্রপতি শাসিত সরকার বলে। এ ব্যবস্থায় রাষ্ট্রপতি প্রকৃত শাসক। তিনি জনগণের প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ ভোটে নির্বাচিত হন। তিনি তার কাজের জন্য আইনসভার নিকট দায়ী থাকেন না। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে রাষ্ট্রপতি শাসিত সরকার বিদ্যমান। এই শাসন ব্যবস্থায় সকল শাসন ক্ষমতা রাষ্ট্রপতির হাতে ন্যস্ত থাকে। রাষ্ট্রপতি আইনসভার সদস্য নন। জনগণ কর্তৃক নির্দিষ্ট কালের জন্য তিনি নির্বাচিত হন। আইনসভা তার বিরুদ্ধে অনাস্থা ভোট পাস করতে পারে না। গুরুতর অভিযোগ থাকলে তাকে পদচ্যুত করা যায়। রাষ্ট্রপতি মন্ত্রীদের নিয়োগ করেন এবং মন্ত্রীগণ তার নিকট দায়ী থাকেন। রাষ্ট্রপতি যে কোনো সময় মন্ত্রীদের পদচ্যুত করতে পারেন।

রাষ্ট্রপতি শাসিত সরকারের গুণ:
এই ধরনের শাসন ব্যবস্থায় সরকার অপেক্ষাকৃত স্থায়ী হয়। অভিশংসন ব্যতীত রাষ্ট্রপতিকে ক্ষমতাচ্যুত করা যায় না। ফলে দীর্ঘমেয়াদী উন্নয়ন কর্মসূচি গ্রহণ ও বাস্তবায়ন সহজ হয়। সংকটকালের জন্য এ ব্যবস্থা উপযোগী। কারো পরামর্শ গ্রহণে বাধ্য নন বলে জরুরি সময়ে রাষ্ট্রপতি নিজে দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। এ ব্যবস্থায় ক্ষমতা স্বতন্ত্রীকরণের নীতি থাকায় শাসন বিভাগ, আইন বিভাগ ও বিচার বিভাগ পরস্পর নিয়ন্ত্রণমুক্ত থেকে স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারে।

রাষ্ট্রপতি শাসিত সরকারের ত্রুটি:
রাষ্ট্রপ্রধান প্রকৃত শাসক। তিনি ও তার মন্ত্রিসভা আইনসভার নিকট দায়ী নন বলে স্বেচ্ছাচারী ও দায়িত্বহীন শাসকে পরিণত হতে পারেন। অনেক সময় শাসন বিভাগ ও আইন বিভাগের মধ্যে বিরোধ দেখা যায়। আইনসভার ওপর রাষ্ট্রপতির নিয়ন্ত্রণ না থাকায় তিনি প্রয়োজনীয় আইন প্রণয়ন করাতে পারেন না। ফলে শাসনকার্যে অসুবিধার সৃষ্টি হয়।


👉 Read More...👇

Add a Comment